Skip to main content

Journey to a Mysterious Island of the Dolls | Article 2022

Journey to a Mysterious Island of the Dolls If you have been asked to list some famous movies where doll plays an important role then sure you will list up the below movie names.  Dolls (1987) Child's Play (1988) Puppet Master (1989) Dolly Dearest (1991) Demonic Toys (1992) Dead Silence (2007) The Conjuring (2013) Annabelle (2014) Poltergeist (2015) The Boy (2016) Annabelle: Creation (2017) Yes, many of us more or less have seen the above movies but this article is not on that. This article is about an island which is full of dolls. This is neither a story nor fake gossip. This is true and real. More than 1500 dolls are available now on this island and those dolls have been collected for 50 years. Before going into the history of this island let's take some ideas of different types of dolls. Different types of dolls There have been dolls in human society for 4,000 years. We'll list a few of the many distinct kinds of dolls that exist. Corn husk doll:- Native Americans crea

আজও অ্যান্টিক ক্যামেরাগুলো বিনয়বাবুর কথা শোনেন | [Man having antique cameras] 2022

antique camera

আজও অ্যান্টিক ক্যামেরাগুলো বিনয়বাবুর কথা শোনেন | [Man having antique cameras] 2022



ঝাঁ চকচকে নতুনের কাছে কয়েক যুগ পেরিয়ে যাওয়া পুরানো স্মৃতিচিহ্ন এসে পড়লে তখন সেই পুরানোকে অ্যান্টিক বলেই মনে হয়। তবুও আমরা এখনও এই প্রবাদ বাক্যে বিশ্বাসী - "Old is gold"। অনেক সময় মানুষের কাছে পুরানো পত্রিকার গুরুত্ব না থাকলেও সেই পত্রিকার মাধ্যমে পড়ে ফেলা ঘটনাটার রেশ থেকে যায় মনে অনেকদিন। লন্ড্রি থেকে আনা জামা-কাপড়গুলোকে মুড়িয়ে যে অর্ধেক খবরের কাগজটা হাতে করে বাড়ি এসেছিল সেটা কোন পত্রিকার অংশ তা নির্দিষ্ট করে বলা যাচ্ছে না। তবে আশা করছি এই পত্রিকার ঘটনাটি অনেক পত্রিকাতেই প্রকাশিত হয়েছিল।

যার সম্পর্কে লিখছি সেই গুণসম্পন্ন মানুষটির নাম - বিনয়কুমার গুহ। বাংলাদেশের বরিশালের স্বরূপকাঠিতে জন্ম। ভারতবর্ষের স্বাধীনতার আগে থেকেই তাঁর নিজের জীবনযুদ্ধ শুরু হয়ে গিয়েছিল। ১৩ বৎসর বয়সে বাবা মারা যান। তারপর থেকেই মা আর ভাইকে নিয়ে তাঁর একমাত্র সংসার। জীবনকে এবং সংসারকে বাঁচানোর জন্য খুব অল্প বয়স থেকেই তাঁকে কাজের খোঁজ করতে হয়েছিল। খুলনার বিস্কুট কারখানা থেকে শুরু হয় তাঁর প্রথম কাজ, তারপর রেশন দোকানে এবং তারপর চায়ের কম্পানিতে। তখন তাঁর মাইনে ছিল মাত্র ৪৫ টাকা।

এখন তাঁর বয়স প্রায় ৯৪ বৎসর। বীরভূম জেলার সিউড়ির বারুইপাড়ার বাসিন্দা। বয়সের সাথে সাথে তাঁর অভিজ্ঞতাও বেড়েছে। ছবি তোলার শিল্পীর কেরামতির খিদেতো থাকবেই। যেখানে সৌন্দর্যের রহস্য সেখানেই তাক করে রাখে তাঁর ক্যামেরা এবং চোখ। দাদু প্রসন্নকুমার দাসের কাছ থেকে ফটোগ্রাফি শেখেন। ১৯৪৫ সালে, খুলনায়। তাঁর জীবনের প্রথম ক্যামেরা হল 'মিনিট ক্যামেরা' যেটি তিনি কিনেছিলেন ৬০ টাকার মুল্যে মায়ের গয়না বিক্রি করে। সেই সময় কলকাতায় এসে শীতল স্টুডিওতে কাজ শুরু করেন। কিন্তু সেই কাজ বেশি দিন স্থায়ী হল না কারণ স্টুডিওর মালিক বুঝতে পেরে গিয়েছিল যে তাঁর ডার্করুমে কাজের অভিজ্ঞতা নেই। পরে মিথ্যা কথা বলে কলকাতার আরেকটি স্টুডিওতে কাজ শুরু করেন। র‍্যাপিড ফটো সার্ভিস স্টুডিও। সেখানেও স্টুডিওর মালিক মিলনবাবুর চোখে ধরা পড়ে গেলেন। মিলনবাবু হাতে ধরে তাঁকে ডার্করুমের কাজ শেখালেন।

যার হাতে ক্যামেরা সে কি আর কখনও ঘরে বন্দি থাকতে চাই। তাঁর ক্ষেত্রেও এর কোনও ব্যাতিক্রম হল না। তিনি মায়ের গয়না বিক্রি করে যে মিনিট ক্যামেরাটি কিনেছিলেন সেটি নিয়েই দু'বার গঙ্গাসাগরের মেলায় ঘুরে এসেছিলেন। বন্ধুদের এবং অন্যান্যদের অনেক ছবি তুলেছিলেন। স্টুডিওর রোজগারের ৬০০ টাকা দিয়ে প্লেট ক্যামেরা (Voigtander) কিনেছিলেন। দিঘায় সেই ক্যামেরা দিয়ে পর্যটকদের ছবি তুলে দিয়ে হাতে হাতে টাকাও রোজগার করেছিলেন।

১৯৪৫ সালের সেই সময় কার্ফুর জন্য কলকাতায় অধিকাংশ দোকান বন্ধ থাকত। স্টুডিওর কাজ চলত বন্ধ ঘরের মধ্যে সেই ডার্করুমে। সেই সময় ভারতের পতাকার ছবি এবং নেতাজির স্যালুট দেওয়ার ছবির খুব চাহিদা ছিল। ডার্করুম থেকে নেতাজির ১০০টা ছবি তুলে দিলে দু-আনা পাওয়া যেত। কার্ফুর সময় স্টুডিওতে কাজ করার জন্য তাঁকে গ্রেফতার করে দমদম জেলেতে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল।

১৯৪৭ সালে, তিনি সিউড়িতে মাসির বাড়িতে চলে এসেছিলেন। সেই সময় সিউড়িতে বিদ্যুৎ ব্যবস্থা ছিল না। তাই সেখানে টিনপাড়ার দোতলায় দোকান ভাড়া নিয়ে স্টুডিও গড়ে তুললেও বিদ্যুতের জন্য তাঁকে সমস্যায় পড়তে হল। বিদ্যুতের অভাবে ছবি প্রিন্ট করা যেত না। আরও ২ বছর পর সিউড়িতে বিদ্যুৎ এলো এবং তখন ছবি প্রিন্টের সমস্যার সমাধান হল। সেখানে তখন ফটোগ্রাফার বলতে আর কেউ ছিল না। সকলে তাঁকেই একমাত্র ছবি তোলার জন্য চিনতেন। বিয়েবাড়ি থেকে শোকবাড়ি কিংবা গ্রুপ ছবি তোলার জন্য তাঁকেই ডাকা হত। 

মিনিট ক্যামেরা, প্লেট ক্যামেরার পর ১২০, ৩৫ ফিল্ম ক্যামেরা কিনেছিলেন; তারপর রোলিফ্যাক্স, রোলিকট, ইয়াসিকা ৬৩৫, আর্কোপ্লেক্স সহ একাধিক ক্যামেরা কিনেছিলেন। এক বিদেশি গবেষক যিনি নরওয়ে থেকে বক্রেশ্বর এসেছিলেন গবেষণার তাঁর ক্যামেরার শাটার লক হয়ে গিয়েছিল। বিনয়বাবু সেই ক্যামেরার শাটারলক খুলে দিয়েছিলেন এবং সেই গবেষক তাঁকে খুশি হয়ে ফ্ল্যাস, এক্সপোজার মিটার উপহার দিয়েছিলেন। তিনি সত্তর দশকে ইন্দিরা গান্ধী, লাল বাহাদুর শাস্ত্রী, বিধানচন্দ্র রায় সহ অনেক বিশিষ্টজনকে ক্যামেরাবন্দি করেছিলেন।

সময় যখন আস্তে আস্তে ডিজিটেলের দিকে এগোচ্ছিল তখন তিনি নতুন টেকনোলজিকেও আপন করে তুলতে সক্ষম হয়েছিলেন। তিনিই প্রথম সিউড়িতে ডিজিটেল ক্যামেরা ব্যবহার ক্রতেন। ২০০৪ সাল থেকে তিনি আর তাঁর স্টুডিওতে যান না। এখন অবসরে তাঁর জমানো প্রত্যেকটা ক্যামেরাতে চোখ রাখেন এবং যত্নে মুছে পরিষ্কার করে রেখে দেন। এই সমস্ত পুরানো ক্যামেরাগুলো কেনার জদে অনেকজন তাঁর কাছে এসেছিল। কিন্তু তাদের সকলকে খালি হাতেই ফিরে যেতে হয়েছে। যারা কিনতে এই ক্যামেরাগুলো তাদের কাছে এগুলো হয়ত সামান্য অ্যান্টিক নামে পরিচিত; কিন্তু বিনয়বাবুর কাছে এই ক্যামেরাগুলো একেকটা সময় পেরোনোর মাইলস্টোনের সমতুল্য। এখন ইতিহাসের অমূল্যবান সেই ক্যামেরাগুলোর মালিক তিনি। কতজনই-বা এইভাবে যত্নে দীর্ঘকাল ধরে নিজের অমূল্যবান সম্পত্তিকে রক্ষা করতে পারে! 

এখনও তাঁর ক্যামেরা চলছে। বিনয়বাবুর এই অ্যান্টিক ক্যামেরাগুলো এখনও বিনয়ের সাথে তাঁর প্রতিটা ক্লিকের উত্তর দেয়।


অ্যান্টিক ক্যামেরা | ক্যামেরা দাদু | ক্যামেরা ম্যান | বীরভূমের ক্যামেরা দাদু | বিনয়বাবুর ক্যামেরার ইতিহাস | ক্যামেরার প্রবন্ধ | ডার্করুম | ফটোগ্রাফার | ক্যামেরায় বন্দি সময় | মিনিট ক্যামেরা থেকে ডিজিটাল | vintage camera india | best vintage cameras | vintage camera store | antique camera for sale in india | antique cameras value | Article | Photographer | History of a photographer | Photographic history | portrait photography | still life photography | boudoir photography | claude cahun | mapplethorpe | real estate photography | portrait photo | carrie mae weems | photography studio | lorna simpson | outdoor photo | photo shoots near me | event photography | flytographer | iris photo | deana lawson | headshots near me | commercial photography | darkroom


Comments